please click here to view dainikshiksha website

এমপিওভুক্ত শিক্ষকগণ কি শতভাগ উৎসবভাতা পাবেন না?

মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ | আগস্ট ১০, ২০১৭ - ৬:০৯ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

বাংলাদেশে ‘মানুষ গড়ার কারিগরদের উৎসবভাতা একটি ‘জাতীয় লজ্জা’! দেশের প্রায় শতভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত এবং শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দের প্রারম্ভিক বেতনের ১০০ ভাগ রাষ্ট্রীয়ভাবে বহন করা হলেও এমপিওভুক্ত শিক্ষকবৃন্দই সম্ভবত বিশ্বের একমাত্র পেশাজীবী যারা সিকিভাগ (২৫ শতাংশ) এবং কর্মচারীবৃন্দ ৫০ শতাংশ উৎসবভাতা পান। বৈষম্যটি পীড়াদায়ক।

অথচ খুবই প্রাসঙ্গিক যে, ১৯৬৬ খ্রিস্টাব্দে প্যারিস সম্মেলনে ১৩টি অধ্যায় ও ১৪৬টি ধারা-উপধারায় শিক্ষকের মর্যাদা ও অধিকারের সুপারিশ প্রণীত হয়। কিন্তু বাংলাদেশে শিক্ষা ও শিক্ষকস্বার্থে বিনিয়োগ যৎসামান্য এবং শিক্ষকের অধিকার নিম্নগামী। এমপিওভুক্তদের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন পদের সবাই একই পরিমাণ (১০০০ টাকা) বাড়ি ভাড়া পান। তারা বার্ষিক পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি, পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল ও উৎসব ভাতা, বৈশাখী ভাতা, পদোন্নতি, স্বেচ্ছা অবসর, বদলি সুবিধাসহ অসংখ্য বঞ্চনার শিকার।

অথচ শিক্ষকদের জন্য প্রণীত সনদে শিক্ষকের চিকিৎসা, স্বাস্থ্যসেবা, ছুটি, বেতন-ভাতা ও মর্যাদার ক্ষেত্রে বলা আছে (ক) সম্মানজনক পারিতোষিক নিশ্চিতকরণ (খ) যুক্তিসংগত জীবনমান বিধানকল্পে সুবিধাদি নিশ্চিতকরণ (গ) স্কেল অনুযায়ী নিয়মিত বেতন-ভাতাদি প্রাপ্তির নিশ্চয়তা (ঘ) জীবনধারণের ব্যয় বৃদ্ধির সঙ্গে বেতনকাঠামো পুন:বিন্যাস ও বর্ধিত বেতনপ্রাপ্তির নিশ্চয়তা ইত্যাদি। কিন্তু চির বঞ্চনাই যেন ‘বেসরকারি শিক্ষক’দের ভাগ্যলিপি।

ঈদুল আযহা সমাগত। দেশ এখন সহস্রাব্দ উন্নয়ণ লক্ষমাত্রা (এমডিজি) অর্জনের পথে এবং মধ্যম আয়ের দেশের তালিকায় নাম লেখাতে যাচ্ছে। দেশে তো ‘পাখি ড্রেসের’ জন্য আত্মহত্যা, ডিভোর্সের ঘটনাও ঘটেছে অথচ একজন শিক্ষকের সংসারের কষ্টের সংবাদ পত্রিকার শিরোনাম হয় কি? একজন শিক্ষক যে উৎসবভাতা পান, তাতে উৎসব কি উৎসব থাকে? বর্তমান বাজারদর বিবেচনায় টাকার অংকে একজন শিক্ষকের উৎসবভাতা নিতান্তই সামান্য নয় কি?

মানবসম্পদ উন্নয়নে ‘মানুষ গড়ার কারিগর’ শিক্ষকের জীবনমানের উন্নতির বিকল্প নেই এবং কারিগরকে অভুক্ত, অবহেলিত রাখলে জাতি হয়ে ওঠবে অবনমিত ও নিম্নগামী। অত্যন্ত সীমিত আয়ের এ মানুষগুলোর জীবন দারুন কায়ক্লেশে স্থবির। পরিশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন, আসন্ন ঈদুল আযহার আগেই বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দের জন্য পূর্ণাঙ্গ উৎসবভাতা ঘোষণার মাধ্যমে তাদের মুখে হাসি ফোটাবেন ও বুকে সাহস জোগাবেন।

মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ: সহকারি অধ্যাপক, কাপাসিয়া, গাজীপুর।

[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৪১টি

  1. Md.Rashidul Islam says:

    হাই রে দেশ আর হাইরে শিক্ষা। যে দেশ এ এখনো শিক্ষকের যথাযত সম্নান ও সম্নানি দেই না। সেই দেশ কে আবার কিভাবে ডিজিটাল দেশ ও উন্নয়ন শীল দেশ বলা হয়।

  2. nurul islam says:

    আপনার মন্তব্যRight.

  3. শহিদুল ইসলাম রজব আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ঝিনাইদহ সদর says:

    ধন্যবাদ

  4. Saroj Kumar sarkar says:

    No comment Sir. Our education minister, prime minister are indifferent to the non govt teachers and these teachers seem to be inferior. Probably our govt can’t ralizero the pain of these non govt teachers.

  5. ভূপাল প্রামানিক, প্র:শি: নামুজা উচ্চ বি: & সেক্রেটারি, বা: প্রধান শিক্ষক সমিতি, বগুড়া সদর। 01711 515468 says:

    Ok.,,..

  6. Md . Anwar Hossain says:

    আপনার মন্তব্য It is very difficult to continue life bcz family expense is greater than income. so tension increases, skill of a teacher decreases.
    No nation can prosper without the contribution of teacher. So it the time to develop the country by developing teacher.

  7. মোঃ আজমত আলী says:

    সিকি বোনাসের সিকি আনন্দ।

  8. মোঃ সাইফুল ইসলাম says:

    ঘুমের মানুষ জাগানো সহজ,কিন্তু কেউ যদি ঘুমের ভান করে তাকে জাগানো কেমন করে সম্ভব..?শিক্ষক সমাজের মত পার্থক্যের কারনেই আজ নিজেরাই অবহেলিত…!!

  9. মোঃ আলমগীর, ইসলামপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ইসলামপুর, চাঁপাই নবাবগঞ্জ। says:

    “এক দফা এক দাবি
    জাতীয়করণ সময়ের দাবি।”

  10. মোস্তাফিজুর রহমান।সহ:শিক্ষক(গনিত)দূর্গাপুর হাজী মোবারক আলী দাখিল মাদরাসা।বরিশাল।01711857492 says:

    সরকারের দাবি একটা খাসি ইদ বোনাস হিসাবে চাই

  11. মোঃআবুল কালাম আজাদ সহঃ শিঃ পার্বতীপুর দাঃ দাঃ মাদ্রাসা রংপুর। says:

    Many many thanks, Sir

  12. মোঃআবুল কালাম আজাদ সহঃ শিঃ পার্বতীপুর দাঃ দাঃ মাদ্রাসা রংপুর। says:

    Thanks. Sir.

  13. Raton Roy says:

    শতভাগ বোনাস কি শিক্ষকদের স্বপ্ন না ন্যায্য পাওনা?

  14. মোঃআবুল কালাম আজাদ সহঃ শিঃ পার্বতীপুর দাঃ দাঃ মাদ্রাসা রংপুর। says:

    Thanks.Sir

  15. নির্মল কুমার বিশ্বাস। says:

    ধোকলা বাজির ধোকায় পড়ে বেসুরে বাজালি তাল
    ঘুম দিয়ে কাতালি মনা চিরকাল।

    রাজ্জাক দেওয়ানের বিখ্যাত গানেই প্রকাশ পায়।

    এরা ঘুমিয়ে আছে, অন্যের কথা ভাবার সময় নাই। নিজেরা ভাল আছে এটাই যতেষ্ট।

  16. এইচ,কে রায়হান-নওগাঁ says:

    শিক্ষক ভাই চিৎকার করে লাভ নাই, এই চিৎকার কেউ শুনবেনা অতএব যা পাচ্ছেন তাই নিয়ে সন্তোষ্ঠ থাকঊন।

  17. পরমানন্দ ঢালী says:

    লজ্জা করে বেসরকারি শিক্ষকরা যখন নিজেরা নিজেদের মানুষ গড়ার কারিগর বলে দাবি করেন। যেখানে সরকারের পক্ষ থেকে সব সময় অবহেলা করা হয়,হেয় করা হয়। আর এটাই যথেষ্ট।

  18. Wasim B.Sc says:

    আপনার মন্তব্যসিকি বোনাস না তোলার জন্য বিনিত অনুরোধ করছি।

  19. মোঃ বেলাল হোসন says:

    শিক্ষকরা যে মানুষ গড়ার কারিগর তা কি আমাদের দেশের আমলারা বা সরকার স্বীকার করেন ? তারা মনে করে এম এ পাশ পিয়ন আছে। মানুষ গড়ার কারিগরদের বাড়ী ভাড়া তাদের পিয়নদের সমান। এটা কি লজ্জার নয় ?

  20. মোঃ বেলাল হোসেন says:

    শিক্ষকরা যে মানুষ গড়ার কারিগর তা কি আমাদের দেশের আমলারা বা সরকার স্বীকার করেন ? তারা মনে করে এম এ পাশ পিয়ন আছে। মানুষ গড়ার কারিগরদের বাড়ী ভাড়া তাদের পিয়নদের সমান। এটা কি লজ্জার নয় ?

  21. মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ says:

    শিক্ষক নিয়োগ, শিক্ষার মানোন্নয়ন, শিক্ষকদের পেশাগত বঞ্চনার অবসানে দেশের সমগ্র শিক্ষাব্যবস্থার জাতীয়করণ জরুরি। জাতীয়করণের দাবিতে কলেজ শিক্ষকের মৃত্যু, আদালতে রিট বা এমপিওভুক্তির জন্য অনশন কখনো কাম্য হতে পারে না।
    মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ
    সহকারী অধ্যাপক, কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ, কাপাসিয়া, গাজীপুর- ১৭৩০

  22. Md. samrat, says:

    correction . we are poor . samrat

  23. Md. samrat, says:

    Correction by Samrat, We are poor

  24. মোঃ হবিবর রহমান, প্রভাষক, পরিসংখ্যান, বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ, দিনাজপুর। says:

    একটা বুদ্ধি বের করা যায়।
    এবছর বোনাস ঈদের আগে আসুক আর পরে আসুক সেই টাকা দিয়ে 2/3 টা ছাগলের বাচ্চা কিনে বাড়িতে লালন পালন করবেন। বড় হলে পরবর্তী ঈদে সেগুলো কোরবানি দিবেন। সাতজন মিলে গরুর বাছুুর কিনে পালাক্রমে পুশবেন। বড় হলে পরের বছর কোরবানি দিবেন। এভাবে প্রতি বছরের বোনাসের টাকায় পরের বছরে কোরবানি দেয়ার সিস্টেম চালু করেন। সুন্দর ঈদ এবং কোরবানি হবে ইনসাল্লাহ।

  25. মোঃশহিদুল ইসলাম says:

    ধন্যবাদ ,নেতাদের ঘুম ভাঙানো দরকার।

  26. মোঃ এনামুল হক সহঃ শিঃ says:

    শিক্ষক হচ্ছেন মানুষ গড়ার কারিগর,শিক্ষকরা সম্মানিত তাই শিক্ষকদের কাছে গরু ছাগলের দাম কম নিবেন তাই শিক্ষকদের. পুনাঙ্গ বোনাস দরকার নাই| আগের পুরাতন শিক্ষকরা তাদের ছাত্রদের ভাল শিক্ষা দিতে পারেন নাই – ষারা অবসরে গেছেন তাদের কথা ভাবুন সব কিছুই বুঝতে পারবেন া

  27. মোঃ এনামুল হক সহঃ শিঃ says:

    Ok

  28. মোঃ সরোয়ার রহমান , বোধখানা মহিলা দাখিল মাদ্রাসা ঝিকরগাছা, যশোর । says:

    এ লজ্জা দেখার কেও নেই—————————–?

  29. মোঃ সরোয়ার রহমান , বোধখানা মহিলা দাখিল মাদ্রাসা ঝিকরগাছা, যশোর । says:

    এ লজ্জা দেখার কেও নেই //////////////////////////////////////////////////////?

  30. ABDUL GAFUR MIA says:

    Nobody is talking to the Honarable Prime Minister Sheikh Hasina.So we do not get 100% bonus.

  31. মোঃ লুৎফর রহমান, প্রভাষক (হিসাববিজ্ঞান), তারিখঃ আগষ্ট ১১, ২০১৭ ‍ সকাল ৮.০০ টা। says:

    মোঃ আলী এরশাদ হোসেন আজাদ স্যার আমি আপনার দাবির সাথে সম্পূর্ণ একমত হয়ে পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি, বিধি মোতবেক মেডিকেল, বাড়িভাড়া, উৎসব ভাতা ও বৈশাখী ভাতা বাস্তবায়নের কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহনের জোর দাবি জানাচ্ছি। এছাড়া প্রভাষকগণের ক্ষেত্রে রেসিও প্রথা বাতিল করে বিধি মোতাবেক টাইমস্কেল, পদোন্নতি, অবসর ভাতা চালুর কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহনের জোর দাবি জানাচ্ছি। এসব বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রির হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

  32. Mohmmad Abu Taher says:

    দেশের সিংহ ভাগ শিক্ষককে অভুক্ত রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে।

  33. মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ says:

    আসুন হাতে হাত, কণ্ঠে কণ্ঠ মিলাই:
    সোনালি আগামীর জন্য আর কোনো দাবি নাই,
    যে যেখানে আছি ভাই
    এক ঘোষণায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ চাই।।
    মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ
    সহকারী অধ্যাপক, কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ, কাপাসিয়া, গাজীপুর- ১৭৩০

  34. Ashraf, shiromoni, khulna says:

    It is amatter sorry,non govt. Teachers are very neglected by the gov.not only that they are also neglected by the gb.

  35. মহিউদ্দিন, চরহাজারী, কোম্পানীগঞ্জ, নোয়াখালী। says:

    শিক্ষক জাতীর কারিগর। ধর্মীয় দৃষ্টিতে পিতা মাতার পরে শিক্ষকের স্থান। অথচ এ দেশে এমপিও ভুক্ত শিক্ষকের কোন মান মর্যাদাই নাই। মনে হয় মুক্তি যুদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছেন সরকার ও সরকারি চাকুরীজীবিদের জন্য। এক দেশে দুই নীতি। কেউ ঈদ আনন্দ করবে ১০০%, আবার কেউ ঈদ আনন্দ করবে ২৫%। বিচার এ দেশের জনগণের হাতে ছেড়ে দিলাম।

  36. Ab Jalil says:

    ছাত্ররা জানে, ম হা ন পেশার এই মানুষগুলোর বেতন-ভাতা অতি নগণ্য ! এই মানুষগুলো দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির সাথে লড়াইয়ে পেরে ওঠেনা, হোঁচট খায়। বেতন-ভাতার জন্য সরকারের কর্তা ব্যক্তিদের দ্বারে দ্বারে করুণা ভিক্ষা চায়!

  37. Kabir says:

    এতো বৈষম্য থাকলে শিক্ষকরা স্বাভাবিক পাঠদান এ সক্ষম হবেন কিভাবে???????

আপনার মন্তব্য দিন