হাটহাজারী মাদরাসায় পরীক্ষা : নির্দেশ অমান্য করার পর মন্ত্রণালয়ের অনুমতি! - মাদরাসা - দৈনিকশিক্ষা

হাটহাজারী মাদরাসায় পরীক্ষা : নির্দেশ অমান্য করার পর মন্ত্রণালয়ের অনুমতি!

নিজস্ব প্রতিবেদক |
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য করে গত রোববার (সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের হাটহাজারীর আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসায় স্নাতকোত্তর পরীক্ষা শুরু হয়। আর নির্দেশনা অমান্য করার পর মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) মাদরাসাটিকে পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। একই সাথে মাদরাসাটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে জারি করা আদেশটি স্থগিত করা হয়েছে।
 
গত ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফী মারা যান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অমান্য করে রোববার থেকে প্রতিষ্ঠানটি পরীক্ষা নেয়া শুরু করে। ২০ সেপ্টেম্বর সকালে পরীক্ষা শুরু হলেও সেদিনই মাদরাসায় পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।
 
সূত্র দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানায়, মাদরাসাটিতে খোলার অনুমতি চেয়ে আবেদনটি সুপরিশসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও হাটহাজারীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। সে প্রেক্ষিতে আজ ২২ সেপ্টেম্বর মাদরাসাটিকে পরীক্ষা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ।
 
মন্ত্রণালয়ের জারি করা আদেশে বলা হয়, স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে পালনের শর্তে মাদরাসাটিকে পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দেয়া হল। একই সাথে ১৭ সেপ্টেম্বর জারি করা আদেশেটির কার্যকারিতা স্থগিত করা হল।
 
ছাত্রদের বিক্ষোভের মুখে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ওই মাদরাসা বন্ধ ঘোষণা করেছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
 
জানা গেছে, মাদরাসার সদ্য প্রতায় মহাপরিচালক আহমদ শফী দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত কারণে মাদরাসার প্রশাসনিক তদারকিতে অক্ষম হয়ে পড়ছিলেন। অসুস্থ শফী দাপ্তরিক কাজে ছোট ছেলে আনাস মাদানীর ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েন। এই সুযোগে আনাস মাদানী হেফাজতে ইসলাম ও হাটহাজারী মাদরাসায় নিজের বলয় বাড়াতে তৎপরতা শুরু করেন। এসব অভিযোগ তুলে
 
জানা গেছে, শফীর প্রেস সচিব মুনির আহমদকে কোনো নোটিশ ছাড়াই দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার সব দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এরপর থেকেই আনাস মাদানীর প্রভাব,মাদরাসার ভেতরে প্রশাসনিক অনিয়মের বিষয়গুলো আলোচনায় আসে। আনাস মাদানীর প্রভাবে কোনো কারণ দর্শানো ছাড়াই কমপক্ষে ১১ জন শিক্ষক-কর্মকর্তাকে বিনা কারণে মৌখিক নির্দেশে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। এরপর গত ১৬ সেপ্টেম্বর আনাস মাদানীকে বহিষ্কারের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে হাজারও শিক্ষার্থী।

 

 
শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।
 
দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

 

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের আবেদনে ভুল সংশোধনের সুযোগ - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের আবেদনে ভুল সংশোধনের সুযোগ আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং - dainik shiksha আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন - dainik shiksha ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের - dainik shiksha ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ - dainik shiksha প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ please click here to view dainikshiksha website